Home

Recent News

২০১৬-১৭ শিক্ষ বর্ষ : প্রাক নির্বাচনি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৭ প্রকাশিত
২০১৬-১৭ শিক্ষা বর্ষ: নির্বাচনি পরীক্ষা আগামী ১৬/১১/২০১৭ তারিখে শুরু হবে।

প্রতিষ্ঠানের ইতিহাস
উত্তর জনপদের সীমান্ত সংলগ্ন জেলা লালমনিরহাট সদর উপজেলায় অবস্থিত লালমনিরহাট-মোগলহাট সড়কের পার্শ্বে নদীভাঙ্গন কবলিত মোগলহাট ইউনিয়নের চিরছায়া সবুজঘেরা সুশোভিত, শান্ত ও নিরিবিলি পরিবেশে অত্র এলাকার বিদ্যানুরাগী ব্যক্তিবর্গের নিরলস পরিশ্রমে মরহুম মেজর কামরুল হাসান আজাদ (অবঃ) সাহেব তাঁর মায়ের নামে প্রায় ৪.০০ একর জমির উপর ১৯৯৪ সালের ডিসেম্বার মাসে অত্র কলেজটি প্রতিষ্ঠিত হয়।
মোগলহাট ইউনিয়নে প্রতিষ্ঠিত কলেজ এলাকাটি নদীভাঙ্গন কবলিত গরীব জন অধ্যূষিত হওয়ায় মাধ্যমিক শিক্ষা পরবতী উচ্চ মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের আর কোন কলেজ না থাকায়  স্থানীয় জনগন ও অভিভাবকগণের দাবীর প্রেক্ষিতে তৎকালীন মোগলহাট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও অত্র এলাকার মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক মরহুম মাহবুব হোসেন চৌধুরী (মুকুল চৌধুরী) সাহেবের সভাপতিত্বে ২৩.১২.১৯৯৪ তারিখে এলাকার জনগন ও বিদ্যানুরাগী ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে এক সভায় অত্র কলেজটি প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে কলেজটি গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে আসছে
১৯৯৫-৯৬ শিক্ষাবর্ষের ১৯৬ জন শিক্ষার্থী নিয়ে বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষ শাখায় মোট ১৬ টি বিষয়ে পাঠদান কার্যক্রম শুুরু করে এবং ০৫.০৬.২০০০ তারিখে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে এমপিও ভুক্ত (কার্যকর-১৫.০৫.২০০০) হয়।
উচ্চ মাধ্যমিক পরবর্তী উচ্চ শিক্ষা গ্রহনের কোন প্রতিষ্ঠান না থাকায় এলাকার জনগণের দাবীর প্রেক্ষিতে ডিগ্রী (পাস ) কোর্স চালুকরণের সিদ্ধান্ত হয় । সে মোতাবেক কলেজটি ২০০৭-০৮ শিক্ষাবর্ষে বিএ, ও বিএসএস (পাস  কোর্স ভর্তির জন্য ০৮.০৫.২০০৮ তারিক জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্তি লাভ করে।
প্রতিষ্ঠালগ্ন হতে কলেজ পরিচালনা কমিটির সুদক্ষ পরিচালনার শিক্ষকগণের অক্লান্ত পরিশ্রম ও আন্তরিকতায় ছাত্র-ছাত্রীরা মানসম্পন্ন শিক্ষ লাভ করে আসছে । যার ফলে বিগত বছরগুলোতে সকল বিভাগে/শাখায় সন্তোষজনক ফলাফল অর্জিত হয়েছে এবং উত্তরোত্তর কলেজে শিক্ষার্থীর সংখ্যা  বেড়েই চলেছে । এরই ধারবাহিকতায় ২০০৩ সালে অধ্যক্ষ সাহেব জেলার কলেজ পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান প্রধান হিসাবে নির্বাচিত হয়েছিলেন । কলেজটির বিশেষ বৈশিষ্ট্য হলো বর্তমান সামাজিক অস্থিরতা ও অবক্ষয়ের প্রেক্ষাপটে একটি অরাজনৈতিক ও সন্ত্রাসমুক্ত ক্যাম্পাস ।

কলেজের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য
উওর জনপদের অবহেলিত জেলা লালনিরহাট সদর উপজেলার মঙ্গাপীড়িত ও নদীভাঙ্গন কবলিত গরীব জন অধ্যুষিত মোগালহাট ইউনিয়নের দুড়াকুটি নামক স্থানে ১৯৯৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় । এলাকার ১৫-১৬ কিলোমিটারের মধ্যে স্কুল পরবর্তী উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান না থাকায় অধিকাংশ শিক্ষার্থী অর্থাভাবে শহরে বা দেশের অন্যান্য শিক্ষ প্রতিষ্ঠানে শিক্ষ লাভ করতে পারে না । ফলে দারিদ্রতার কারণে  এসকল শিক্ষার্থী বিভিন্ন সমাজবিরোধী কাজে লিপ্ত হয় । বিশেষ করে এলাকাটি সীমান্তবতী হওয়ায় উঠতি বয়সের ছেলেরা মাদকাসক্ত হয়ে পড়ার প্রবণতাসহ কালোবাজারী ও চোরাচালানের সাথে জড়িয়ে পড়ছে । এসকল সামাজিক অবক্ষয় উত্তরণে শিক্ষার বিকল্প নেই। একটি অঞ্চলের উন্নয়নের একমাত্র মোক্ষম হাতিয়ার  হল শিক্ষা । তাই এলাকার বর্তমান ও ভবিষ্যত প্রজন্মকে সুনাগরিক হিসাবে গড়ে তোলা এবং সামাজিক মূল্যবোধের উন্নয়ন, জীবন মানের উন্নয়ন, সামাজিক ও প্রাকৃতিক পরিবেশের উন্নয়ন করাই এ প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্য উদ্দেশ্য।

অধ্যক্ষ মহোদয়ের বানী

হিমালয়ের পাদদেশে অবস্থিত উত্তর জনপদের সীমান্তবর্তী লালমনিরহাট জেলার সদর উপজেলাধীন মোগলহাট ইউনিয়ন ও পার্শ্ববতী ইউনিয়নের ১২/১২ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে মাধ্যমিক পরবর্তী উচ্চ মাধ্যমিক ও ‍উচ্চ শিক্ষা বিস্তারে বেগম কামরননেছা ডিগ্রী কলেজ গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা পালন করছে ।
নদীভাঙ্গন কবলিত মঙ্গাপীড়িত জনগোষ্ঠীর কিশোর-কিশোরী ও যুবক –যুবতীদের জীবনের সঠিক পথ নিদের্শনায় ও সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠানটির সকল কার্যত্রম সফল পরিচালনায় প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীদের রয়েছে প্রচন্ড কর্ম-উদ্দীপনা । বিগত শিক্ষা বছরগুলোর উচ্চ মাধ্যমিক ও ডিগ্রী (পাস) পর্যায়ে কৃতিত্বপূর্ণ ফলাফলের জন্য প্রতিষ্ঠানটি জেলার একটি স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান হিসেবে খ্যাতি অর্জন করে । সন্ত্রাস ও রাজনীতিমুক্ত  সুস্থ ও সুষ্ঠু পরিবেশ অক্ষুন্ন বেখে মানসম্মত ও যুগোপযোগী আধুনিক শিক্ষা বাস্তবায়ন করাই বেগম কামরুননেছা  ডিগ্রী কলেজের নিরন্তর প্রচেষ্টা ।
প্রত্যন্ত পল্লী অঞ্চলের দারিদ্র- পীড়িত জনগোষ্ঠীর শিক্ষার  প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করেই মহান ব্যক্তিত্বের অধিকারী প্রয়াত মেজর কামরূল হাসান আজাদ (অবঃ) এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি প্রতিষ্ঠিত করেছেন । আমি তার আত্মার  শান্তি ও মাগফেরাত কামনা করছি । সাধুবাদ জ্ঞাপন করছি তাদের –যারা প্রতিষ্ঠানটির অবকাঠামোগত উন্নয়ন ও আধুনিকত্ব দান করেছেন । এ বিদ্যাপীঠের সকল শুভানুধ্যায়ী, পৃষ্ঠাপোষক শিক্ষনুরাগীদের জানাই আন্তরিক অভিবাদন ।
অত্রালাকায় উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষার বাস্তবায়ন ও  উচ্চ শিক্ষার ভিত রচনায় এ প্রতিষ্ঠানটির অনবদ্য অবদান  অব্যাহত থাকবে-এ প্রত্যাশা করছি।

আমিরূল হায়াত আহমেদ
অধ্যক্ষ
মোবাইলঃ ০১৭ ১৪ ২৩ ০৫ ৩৩

Begum Kamrunnesa Degree College © 2016 Frontier Theme